Logo

ইভ্যালির রাসেলকে সময় দিতে চায় গ্রাহকরা

রিপোটার : / ৩৪ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির সিও মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেফতারের পর গ্রাহকরা জানাচ্ছেন তারা সময় দিতে চান।

বৃহস্পতিবার মোহাম্মদপুরের বাসা থেকে মোহাম্মদ রাসেলকে গ্রেফতারের পর বাসার সামনে অবস্থানরত গ্রাহকরা এই তথ্য জানান।

এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে অনেক গ্রাহক সময় দিতে চান বলে জানান। এছাড়া ইভ্যালির অফিসের সামনে অবস্থান নিয়েছে কিছু গ্রাহক ও মার্চেন্ট। তারাও জানাচ্ছেন সময় দেয়ার কথা।

রেদোয়ান নামে একজন গ্রাহক বলেন, ‘ইভ্যালির রাসেলকে যথাযথ নজরদারির মধ্যে রেখে আরও কিছুদিন সময় দেওয়া উচিত। একটা নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়ে তাকে গ্রাহকদের টাকা ফেরত বা পণ্য দিতে বাধ্য করা যেতে পারে। তাকে ধরে নিয়ে গেলে গ্রাহকরা পণ্য বা টাকা কিছুই পাবেন না।’

শাহজাহান শিকদার নামের একজন সেলার বলেন, ‘রাসেল ভাইয়ের কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে। আমরা চাই ইভ্যালির এমডিকে গ্রেফতার না করে ছেড়ে দেওয়া হোক। তিনি ছয় মাস সময় চেয়েছিলেন আমাদের কাছে, আমরা তাকে সময় দিয়েছিলাম। ছয় মাসের মাত্র এক মাস অতিবাহিত হয়েছে। বাকি আরও পাঁচ মাস আছে।

রহমান আলী নামের ইভ্যালির একজন গ্রাহক বলেন, ‘ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডি তো বিদেশে পালিয়ে যাননি। যদি পালিয়ে যেতেন, তাহলে প্রশাসন ইভ্যালির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারতো। কিন্তু রাসেল ভাই দেশেই ছিলেন এবং আজকেও তিনি কিছু পণ্য গ্রাহকদের ডেলিভারি দিয়েছেন। তাকে গ্রেফতার না করে মুক্ত করে দিক।’ৎ

এদিকে মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রীক শামীমা নাসরিনকে বাসা থেকে বের হতে র‍্যাব সদস্যদের বাধা দেন উপস্থিত গ্রাহকরা। এসময় গ্রাহকরা স্লোগান দিচ্ছেন, ‘রাসেল ভাইয়ের কিছু হলে, জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে।’ গ্রাহকরা বলেন, আমরা রাসেল ভাইয়ের গ্রেফতার চাই না। এই সময় তার মুক্তি চেয়ে বিক্ষোভ করেনছেন গ্রাহক ও মার্চেন্টদের একটি অংশ।

জানা যায়, গতকাল রাতে রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনের (প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান) বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গুলশান থানায় মামলা করেন এক গ্রাহকআরিফ বাকের। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আরিফ বাকের গত ২৯ মে ও জুন মাসের বিভিন্ন সময়ে ইভ্যালিতে মোটরসাইকেলসহ বেশ কয়েকটি পণ্য অর্ডার করেন। এগুলো ৭ থেকে ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে দেওয়ার কথা থাকলেও তারা দেয়নি। ইভ্যালির কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে সমাধান পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, ইভ্যালির সিও মোহাম্মদ রাসেল এক ফেসবুক লাইভে এসে গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছে ৬ মাসের সময় চান। এই সময়ের মধ্যে তিনি সকলের অর্ডার ক্রমান্বয়ে ডেলিভারি দেয়ার আশ্বাস দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন...

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০